রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:৩৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
নাটাই ঐক্যবদ্ধ সংগঠনের সদস্যদের বিশেষ সম্মাননা প্রদানবিশ্বনাথে নারী নির্যাতন মামলার অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের দাবিতে মানববন্ধন৯ লাখ টাকার ইয়াবাসহ, ২যুবক গ্রেফতারকুমারখালীতে উপজেলা বিএনপির ‘অবৈধ’ আহবায়ক কমিটি বাতিলের দাবিতে সংবাদ সম্মেলননাসিরনগরে বাংলাদেশ যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা শেখ ফজলুল হক মনি’র জন্মদিন পালিতখুলনা রিপোর্টার্স ক্লাবের নতুন কমিটি গঠনপঞ্চম ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে যশোর সদর ও কেশবপুরে নৌকার মাঝি হলেন যারাশান্তিগঞ্জ উপজেলার সরদপুর ব্রীজের পশ্চিম পাড় ধসে হুমকির মুখে পড়েছে স্বাভাবিক যান চলাচল।শহীদ জসিম উদ্দিন স্মৃতিসংসদ’ এর উদ্যোগে দোয়া মাহফিল ও শোকসভাকুষ্টিয়া জাতীয় মহিলা শ্রমিক লীগের বিজয় মিউজিক অন দিবসের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

নীলফামারী সদরের ১১ ইউনিয়নের মধ্যে আ. লীগ ২, বিদ্রোহী ৩, বিএনপি ২ জামায়াত ১,স্বতন্ত্র

হাওড় বার্তা ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট বুধবার, ১৭ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩৪ বার পড়া হয়েছে

নীলফামারী জেলা প্রতিনিধিঃ নীলফামারী সদরের ১১ ইউনিয়নের দ্বিতীয় দফার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় গতকাল বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর)। নির্বাচন শেষে ওইদিন গভীর রাতে ওই নির্বাচনের বেসরকারি ফলাফলে ১১ ইউনিয়নের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ ২, আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী ৩, ২ টিতে বিএনপি নেতা ও সমর্থক এবং ১টিতে জামায়াত নেতা ও ৩টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়ী হয়েছেন।

নির্বাচিতরা হলেন, গোড়গ্রাম ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মাহবুব জর্জ (নৌকা) ৪ হাজার ৩৫৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী বিদ্রোহী বর্তমান চেয়ারম্যান রেয়াজুল ইসলাম (আনারস) পেয়েছেন ৩ হাজার ৪৬২ ভোট।

সংগলশী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মোস্তাফিজার রহমান (নৌকা) প্রতীকে ৬ হাজার ৫৯৬ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় বারের ন্যায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম স্বতন্ত্রী প্রার্থী জিয়াউর রহমান (চশমা) পেয়েছেন ৩ হাজার ৭৮৭ ভোট।

প পুকুর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান ওয়াহেদুল ইসলাম (ঘোড়া) ৪ হাজার ৫০৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী নুরুল আমিন সরকার (নৌকা) পেয়েছেন ৩ হাজার ৪০০ ভোট।

রামনগর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী সাবেক চেয়ারম্যান ওবায়দুল ইসলাম (মোটরসাইকেল) ৮ হাজার ৪৩৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী মিজানুর রহমান (নৌকা) পেয়েছেন ৭ হাজার ২৬৫ ভোট।

চওড়াবড়গাছা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আবুল খায়ের বিটু (চশমা) ৪ হাজার ৮১৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী আওয়ামী লীগের উত্তম কুমার রায় (নৌকা) পেয়েছেন ৩ হাজার ৮৫৪ ভোট।

সোনারায় ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি নুরুল ইসলাম শাহ্ (আনারস) ৮ হাজার ৫৩৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী সাবেক চেয়ারম্যান অশ্বিনী কুমার বিশ্বাস (মোটরসাইকেল) পেয়েছেন ৫ হাজার ৩৮৯ ভোট।

চাপড়াসরমজানী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী জামায়াত নেতা জাহাঙ্গীর আলম শাহ ফকির (চশমা) ৫ হাজার ১৫৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম আওয়ামী লীগের কামরুজ্জামান সরকার (নৌকা) পেয়েছেন ৩ হাজার ১৯৩ ভোট।

কচুকাটা ইউনিয়নে (স্বতন্ত্র প্রার্থী) বিএনপির সমর্থক আব্দুর রউফ (চশমা) ৬ হাজার ১৩৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম আওয়ামী লীগের তসলিম উদ্দিন (নৌকা) পেয়েছেন ৪ হাজার ৭৭ ভোট।
পলাশবাড়ি ইউনিয়নে (স্বতন্ত্র প্রার্থী) ইব্রাহিম তালুকদার (আনারস) ৫ হাজার ১৬৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। নিকটতম মমতাজ আলী প্রামানিক (নৌকা) ৩ হাজার ৫৩৫ ভোট পেয়েছেন।

ল²ীচাপ ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান স্বতন্ত্র প্রার্থী আমিনুর রহমান (আনারস) ৬ হাজার ৫৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। নিকটতম আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্যাম চরণ রায় পেয়েছেন ৫ হাজার ৯৫২ ভোট।

চড়াইখোলা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মাসুম রেজা (মোটরসাইকেল) ৫ হাজার ২২৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। নিকটতম আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী আসাদুল হক শাহ (চশমা) ৪ হাজার ৭১ ভোট পেয়েছেন।
জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বৃহস্পতিবার নির্বাচন শেষে গভীর রাতে বেসরকারি ওই ফলাফল ঘোষণার বিষয়টি নিশ্চিৎ করেছেন

এই সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-2281