রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:১১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
নাটাই ঐক্যবদ্ধ সংগঠনের সদস্যদের বিশেষ সম্মাননা প্রদানবিশ্বনাথে নারী নির্যাতন মামলার অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের দাবিতে মানববন্ধন৯ লাখ টাকার ইয়াবাসহ, ২যুবক গ্রেফতারকুমারখালীতে উপজেলা বিএনপির ‘অবৈধ’ আহবায়ক কমিটি বাতিলের দাবিতে সংবাদ সম্মেলননাসিরনগরে বাংলাদেশ যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা শেখ ফজলুল হক মনি’র জন্মদিন পালিতখুলনা রিপোর্টার্স ক্লাবের নতুন কমিটি গঠনপঞ্চম ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে যশোর সদর ও কেশবপুরে নৌকার মাঝি হলেন যারাশান্তিগঞ্জ উপজেলার সরদপুর ব্রীজের পশ্চিম পাড় ধসে হুমকির মুখে পড়েছে স্বাভাবিক যান চলাচল।শহীদ জসিম উদ্দিন স্মৃতিসংসদ’ এর উদ্যোগে দোয়া মাহফিল ও শোকসভাকুষ্টিয়া জাতীয় মহিলা শ্রমিক লীগের বিজয় মিউজিক অন দিবসের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

বিশ্বনাথে পুত্রবধূর নির্যাতনে প্রতিবন্ধী শাশুড়ী ননদসহ আহত- ২

মোঃ আবুল কাশেম
  • আপডেট মঙ্গলবার, ২৩ নভেম্বর, ২০২১
  • ৫১ বার পড়া হয়েছে

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি : সিলেটের বিশ্বনাথে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে পুত্রবধূর নির্যাতনে প্রতিবন্ধী শাশুড়ী ননদসহ আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার (২১ নভেম্বর) দিবাগত রাতে পৌর শহরের রামপাশা রোডের ইরন এন্ড তোরন মঞ্জিলে বসবাসকারী বালু-পাথর ব্যবসায়ী ফরিদ মিয়ার স্ত্রী ও পুত্রবধূর তারই আপন ভাই বোন মিলে প্রতিবন্ধী শাশুড়ী ও ননদের উপর হামলা করেন।

এঘটনায় রবিবার রাতেই ৬ জনের নাম উল্লেখ করে বিশ্বনাথ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন উপজেলার খাজাঞ্চী ইউনিয়নের রঘুপুর গ্রামের মৃত মদরিছ আলীর স্ত্রী লায়লুন নাহার (৬৫)।

হামলাকারীরা হলেন, ফরিদ মিয়ার স্ত্রী লিপি বেগম(৩৩) ওসমানীনগর থানার ধুলিয়ারবন গ্রামের সায়েস্তা মিয়ার ছেলে সাহেদ মিয়া ( ৩০) জাহেদ মিয়া(২৫) রায়হান মিয়া (২০) পপি বেগম (২৪) লাকি বেগম (১৯)।

আহতরা হলেন, মৃত মদরিছ আলীর স্ত্রী লায়লুন নাহার (৬৫) লায়লুন নাহারের মেয়ে প্রতিবন্ধী রেসনা বেগম।

আহত অবস্থায় লায়লুন নাহারকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তিনি দীর্ঘদিন ধরে পৌর শহরের বাসায় ছেলে মেয়েদের নিয়ে বসবাস করে আসছেন।

অভিযোগে উল্লেখ করেন, ফরিদ মিয়ার স্ত্রী ও তারই আপন ভাই বোন মিলে আমার প্রতিবন্ধী মেয়েকে দীর্ঘদিন যাবত মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করে আসছে।

আমি লোক লজ্জায় এবং কোনো উপায় না পাইয়া কষ্ট করে আমার প্রতিবন্ধী মেয়েকে নিয়া তাদের নির্যতন সহ্য করিয়া আসিতেছি।

লিপি বেগম আমাকে ও আমার প্রতিবন্ধী মেয়েকে বাসা থেকে বাহির করে দেওয়ার জন্য দীর্ঘদিন যাবৎ সুযোগ খুজিয়া আসিতেছে।

প্রায় ২০/২২ দিন পূর্বে আমার বড় ছেলে ফরিদ মিয়া তাহার ব্যক্তিগত কাজে ইন্ডিয়ায় চলে যায়। আমার ছেলে ইন্ডিয়ায় চলে যাওয়ার পর থেকে আমার ও আমার প্রতিবন্ধী মেয়ের সাথে শারিরীক ও মানসিক নির্যতন আরো বেশি করতে থাকে।

এবং প্রতিদিন বাসা থেকে বাহির হয়ে চলে যাওয়ার জন্য বলে। বাসা থেকে বাহির না হলে লিপি বেগমের ভাই ও বোন মিলে হঠাৎ করে দেশী অস্র দিয়ে আমি ও আমার প্রতিবন্ধী মেয়ের উপর হামলা চালায়। এতে আমি ও আমার প্রতিবন্ধী মেয়ে আহত হই।

 

এ ব্যাপারে কথা হলে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) গাজী আতাউর রহমান বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।

এই সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-2281