শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ০৪:০৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
নাসিরনগরে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু! বিশ্বনাথে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি দূর্গতদের মাঝে সরকারি ত্রাণ বিতরণ।দেশ ও ইফাদ এগ্রো’র দূষিত বর্জ্যের স্বাস্থ্য কেন্দ্র ৭ মাসের বন্ধ!  সুনামগঞ্জে আগামীকাল প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে,জেলা প্রশাসক৩নং বাঃহাঃ ইউপি চেয়ারম্যান আদোমং মারমা শুভ জন্ম দিন পালিতআওয়ামীলীগে গঠনতন্ত্র বি‌রোধী ‘অ‌বৈধভাবে প‌কেট ক‌মি‌টি করার প্রতিবাদে ছাতকে বি‌ক্ষোভ মি‌ছিল প্রতিবাদ সমা‌বেশঅপূর্ব সুন্দরে ভরপুর লিচুর গ্রাম ছাতকের মানিকপুর!চৌহালীতে বঙ্গবন্ধু ১০০ ধান কর্তনের উদ্বোধন!তালা উপজেলা বিএনপির প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত।এ্যাড. আব্দুর রহমান গাজীর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত।নাসিরনগরে স্থায়ী শুমারি/ জরিপ কমিটির সভা অনুষ্ঠিত।পাকুন্দিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় ১জন নিহত!বন্যার পরিস্থিতি ভয়াবহ, বিশ্বনাথে প্রবল আকারে ঢুকছে পানিনাসিরনগরে আওয়ামী লীগের বিশেষ জরুরী সভা অনুষ্ঠিতকুষ্টিয়ায় তছিরন নেছা হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও লিল্লাহ বোডিং এর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন

মনিরামপুর বেকারিতে আগুন,১৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

হাওড় বার্তা ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী, ২০২২
  • ২০ বার পড়া হয়েছে

আবদুল্লাহ আল মামুন যশোর জেলা প্রতিনিধি

মণিরামপুরে ‘বরকত বেকারি’ নামে একটি রুটির কারখানা পুড়ে ছাই হয়েছে। সোমবার (১৭ জানুয়ারি) দিবাগত রাত তিনটার দিকে উপজেলার টেংরামারী বাজারে ঘটনাটি ঘটে।
খবর পেয়ে রাত চারটার দিকে মণিরামপুর ফায়ার স্টেশনের কর্মীরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। মুহূর্তে আগুন ছড়িয়ে পড়ায় ফায়ার সার্ভিসের দল আসার আগে পুরো কারখানাটি ভস্মীভূত হয়ে যায়। এতে অন্তত ১৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
আগুনের সূত্রপাত নিয়ে উপস্থিত কোনো মতামত জানাতে পারেনি ফায়ার সার্ভিস। তবে বেকারির চুলার আগুন থেকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বেকারির ভিতরে চারটি গ্যাস সিলিন্ডার থাকায় আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে। বেকারির কারিগর দেলোয়ার হোসেন বলেন, রাত সাড়ে ১২ টার দিকে আমরা কাজ শেষ করে বাড়ি গিয়েছি। রাত সাড়ে ৩টার দিকে বাজারের নৈশ প্রহরী আগুন লাগার খবর দেন।
কারখানার মালিক রাহুল হোসেন বলেন, সোমবার দিনের বেলায় ৮০ হাজার টাকার মালামাল আনিয়েছি। ক্যাশে ৫৭ হাজার টাকা রাখা ছিলো। বিস্কুট ও কেক তৈরির জন্য কয়েকদিন আগে ৮ লাখ টাকায় একটি ওভেন মেশিন আনা হয়েছিলো। একটা জেনারেটর, দুটি রুটি তৈরির মেশিনসহ সবকিছু পুড়ে ১৫-১৬ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।
টেংরামারী বাজারের নৈশ প্রহরী আবুল হোসেন বলেন, রাত ৩টা ২৫ মিনিটের দিকে বেকারির টিনের চালে আগুন দেখতে পাই। তখন চিৎকার দিলে সবাই এগিয়ে আসে।

এদিকে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ফায়ার সার্ভিসের সেবাপ্রাপ্তি নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। খবর পাওয়ার পরও ফায়ার সার্ভিস দেরি করায় ক্ষয়ক্ষতি বেশি হয়েছে বলে অভিযোগ তাদের।

টেংরামারী বাজার কমিটির সভাপতি শাহ আলম বলেন, রাত সাড়ে তিনটায় খবর পেয়ে আমি ৯৯৯ নম্বরে কল করে আগুন লাগার কথা বলি। তারও আধা ঘণ্টা পরে ফায়ার সার্ভিসের লোক এসেছিলো। তারা আগে আসলে এত ক্ষতি হতো না।

ইউসুফ আলী নামে স্থানীয় এক বাসিন্দা বলেন, আগুনের তীব্রতা ভয়ানক ছিলো। ফায়ার সার্ভিসের অফিস থেকে ঘটনাস্থলে আসতে ৫-৭ মিনিটের পথ। তারা আসতে অনেক দেরি করে ফেলেছে। ফায়ার সার্ভিস আসার আগে বেকারির সব পুড়ে গেছে।তিনি বলেন, ফায়ার সার্ভিসের দেরি দেখে আমরা আতঙ্কিত হয়ে পড়ি। মনে হচ্ছিলো আগুনে পুরো বাজার পুড়ে ছাই হয়ে যাবে।

মণিরামপুর ফায়ার স্টেশনের কর্মকর্তা প্রনব কুমার বিশ্বাস বলেন, আমাদের টিম প্রস্তুত ছিলো না। খবর পেয়ে সবাইকে প্রস্তুত করে আসতে একটু দেরি হয়েছে।তিনি বলেন, আমরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে আধঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনি। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেক। আগুন লাগার সূত্রপাত উপস্থিত অনুমান করা যায়নি। তবে কাঠের চুলা বা বৈদ্যুতিক শক সার্কিট থেকে আগুন লাগতে পারে।

সর্বশেষ সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

সব ধরনের সংবাদ পেতে ক্লিক করুন।
দৈনিক হাওড় বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2019
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-2281