রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ০৬:৫৭ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
হাওর বাঁচাও আন্দোলন কেন্দ্রীয় কমিটির তৃতীয় সম্মেলনে হাওর বিষয়ক মন্ত্রনালয় গঠনের দাবি।দূর্নীতির বিষবৃক্ষে জাতি দিশেহারা, মুখ বন্ধের শেষ কথায় ?সুনামগঞ্জের কুস্তি খেলার ইতিহাস ও ঐতিহ্য গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচনহজ্জের অন্তরালে অবৈধ ভাবে একাদিক বিয়ে করছেন আয়েশাছাতক-দোয়ারাবাজারে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের পুষ্টি গুণ বিস্কুট বিতরণ।শান্তিগঞ্জে নতুন করে যাত্রা শুরু করলো রুরাল ডেভেলপমেন্ট হেল্থ সেন্টার এন্ড ডায়াগনস্টিক।বিশ্বম্ভরপুর থানায় ব্রেস্ট ফিডিং কর্ণার ও লাইব্রেরির উদ্ভোধন। ছাতকে শিক্ষানুরাগী নুর মোহাম্মদ ময়না মিয়া’র ইন্তেকাল।হাওড়ের নেই মাছ : ঋনের চাপে দিশেহারা জেলে।বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব উপাধ্যক্ষ ড.মোঃ আব্দুস শহীদ এমপি অনলাইন ফোরামের উপদেষ্টা মনোনীত হলেন উম্মে ফারজানা ডায়না।

ছাতকে ৪ জনের বিরুদ্ধে অবমাননার অভিযোগ -!!

হাওড় বার্তা ডেস্ক
  • সংবাদ প্রকাশ বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন, ২০২৪
  • ৫৩ বার পড়া হয়েছে

ছাতক (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি:: ছাতকে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান,উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা,পীরপুর ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা,ইজারাদার গোবিন্দগঞ্জ বাজার মাহমুদুর রশীদসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ করেছেন উপজেলার আফজলাবাদ গবাদি পশু ও কৃষি সমবায় সমিতি লিঃ সহ সভাপতি এমদাদুর রহমান চৌধুরী বাদী হয়ে গত ১১ জুন সিলেট বিভাগীয় কমিশনার বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়। এ অভিযোগের ঘটনায় জেলাজুড়েই ব্যাপক সমালোচনার ঝড় বইছে,সামাজিক যোগাযোগ ফেইসবুকের পক্ষে বিপক্ষে পাল্টা-পাল্টি অভিযোগ ঘটনায়  তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

অভিযোগে থেকে জানা যায়,উপজেলার আফজলাবাদ গবাদি পশু ও কৃষি সমবায় সমিতি লিঃ রেজিঃ নং- ০৯৪/১৭ (সুনাম) নিবন্ধিত সমবায় সমিতি। বর্ণিত সমিতির উপজেলা পর্যায়ে কয়েকবার শ্রেষ্ট হয়ে সংসদ, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান থেকে সমবায় দিবসে আনুষ্ঠানিক সনদ গ্রহণ করে। উপজেলা পর্যায়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শ্রেষ্ট সমিতি নির্বাচন কমিটির আহবায়ক এবং সমবায় দিবসে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের সভাপতি ছিলেন। জেলা পর্যায়েও বর্ণিত সমিতিটি শ্রেষ্টত্ব অর্জনে সাবেক পরিকল্পনা মন্ত্রী, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, জেলা প্রশাসক ও জেলা সমবায় কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে সমিতি পুরস্কৃত হয়। তদ্রুপ বিভাগীয় পর্যায়ে সমিতিটি সিলেট বিভাগে শ্রেষ্ট সমিতি হিসেবে বিভাগীয় কমিশনার  প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সমবায় দিবসে আনুষ্ঠানিক সনদ প্রদান করেন। সমিতির ওপর অন্যায় চাপ ও জবর দখল করার জন্য তৎকালীন ইজারাদার কতিপয় সংশ্লিষ্ট ভূমি কর্মকর্তার অন্যায় যোগসাজসে বেআইনী নানাবিধ চাপ সৃষ্টি করলে কোন প্রকার গত্যান্তর না পেয়ে সুনামগঞ্জ যুগ্ম জেলা জজ আদালত, সুনামগঞ্জ বর্ণিত সমিতির দায়িত্বশীল আবেদনকারীরা স্বত্ব মোকদ্দমা নং-১৪৪/২০১৮ নিষেধাজ্ঞা প্রার্থনায় দায়ের করলে আদালত প্রথমে ৪জনকে শোকজ নোটিশ জারী করেন।পরে ২০১৯ সালে ২৭ অক্টোররে আদেশে উভয় পক্ষের শুনানী করেন।

পূর্বোক্ত দফার নিষেধাজ্ঞার আদেশের বিরুদ্ধে ১নং বিবাদি ছাতক উপজেলা চেয়ারম্যান জেলা জজ আদালতে বিবিধ আপীল ০৮/২০২০ দায়ের করেন। আদালত বিবিধ আপীল ০৮/২০২০ মামলাটি অতিরিক্ত জেলা জজ আদালত সুনামগঞ্জ শুনানী ও নিষ্পত্তির জন্য প্রেরণ করেন। বর্ণিত আপীল শুনানী পর্যায়ে আপীল আদালত আদেশ নং ০৪ তাং- ২৯/০৭/২০২০ইং মূলে সরেজমিন তদন্ত এর পর্যবেক্ষণ নির্দেশনা প্রদান করেন। বাদী আফজলাবাদ গবাদি পশু ও কৃষি সমবায় সমিতি লিঃ এর পক্ষে সরেজমিন তদন্ত করানো হয়। প্রসঙ্গত উল্লেখ যে, আপীল্যান্ট বিবাদী পক্ষ থেকে আদালতের আদশে মোতাবেক তদন্তের কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।২০২০ সালে ২৯ জুলাই  নিম্নরূপ বাক্য দ্বারা নির্দেশনা প্রদান করেছে যে, বিবাদী/আপীলকারীকে বাদী/রেসপনডেন্টের দখলকৃত গবাদি পশু খামার থেকে টোল আদায়ে নিবৃত্ত করা হলো। সুনামগঞ্জ আপীল আদালত বিজ্ঞ যুগ্ম জেলা জজ আদালত ২০১৯ সালে জুলাই বিবাদীদেও ওপর  আদেশ বলবৎ রেখে চেয়ারম্যান উপজেলা পরিষদ ছাতক বিবাদী আপীলটি না মঞ্জুর করেছে আদালত। ২০১৯ সালে ২৭ জুলাই,উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা থেকে যারা ছিলেন এবং আছেন গোবিন্দগঞ্জ বাজারের ইজারা বিজ্ঞপ্তিতে বর্ণিত নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি মন্তব্য কলামে উল্লেখ করেন। বর্তমান উপজেলা নির্বাহী অফিসার ছাতক জনাব গোলাম মুস্তফা মুন্না স্বাক্ষরিত ১৪৩১ বাংলার ইজারা বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে। গত ৮জুন,দুপুরে আফজলাবাদ গবাদি পশু ও কৃষি সমবায় সমিতি লিঃ লোহার গেইট নির্মিত খামার গ্রীলের ভিতর প্রবেশ করে তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করে কোনো প্রকার নোটিশ, আদেশ, নির্দেশ প্রদান না করে, তার নিজের গায়ের জোরে অন্যায় ক্ষমতা প্রয়োগ করে তার উপস্থিতি ও নির্দেশিত মতে স্টিলের গেইটে ১” ব্যসার্ধ কাপড়ের কয়েক ফুট ফিতা দিয়ে ফিতার সাথে কিচু রং লাগিয়ে মুখে সীলগালা বললেও কোনো প্রকার আইনানুগ কাগজপত্র না দেখিয়ে ব্যতিক্রম ধর্মী স্টিলের দরজায় প্রতিবন্ধকতা নাটক সাজিয়ে চাপ প্রয়োগ ও মানসিক নির্যাতন শুরু করেন ইউএনও। উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা গোলাম মুস্তফা মুন্না তার ব্যক্তিগত হীন স্বার্থ হাসিলের নিজস্ব অভিপ্রায়ে রাষ্ট্রের আইন, সমবায় আইন বিধিমালা লঙ্ঘন করে মানসিক ও আর্থিক ক্ষতিগ্রস্থ করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তারা। এ ঘটনায় সমিতির আত্ব-সম্মান, মান মর্যাদা ভুলণ্ঠিত, হৃদয় বিদারক মর্মস্পর্শি অবতারণা, অমর্যাদাকর মানহানিকর কার্যকলাপে সমিতি ও ব্যক্তি পর্যায়ে প্রায় ৫ কোটি টাকার মানহানির অপরাধ ও ক্ষতি সাধনা করে ইউএনও গোলাম মুস্তফা মুন্না।

এব্যাপারে ছাতক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) গোলাম মুস্তফা মুন্না.তার বিরুদ্ধে আনীত সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন বিভাগীয় কমিশনার কাছে তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগের সত্যতা বিয়ষে তার কর্তৃপক্ষ যথাযথ তদন্তপুবক আইনানুগত ব্যবস্থা নেবে। এ বিষয়ে তার ব্যক্তিগত কোন বক্তব্য নেই

সর্বশেষ সংবাদ পেতে চোখ রাখুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সব ধরনের সংবাদ
বাংলাদেশ চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তর থেকে নিবন্ধনকৃত পত্রিকা। © All rights reserved © 2018-2024 Haworbarta.com
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-2281