বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ১০:২৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
দুর্বৃত্তের এসিড নিক্ষেপে ঝলসে গেছে যুবক।প্রচন্ড কুয়াশা ও শীতের সকালে কাজে ব্যাস্ত যশোর মনিরামপুরের চাষীরাকোম্পানীগঞ্জে কারিগরি কলেজের সম্মুখে দুটো মোটর বাইকের সংঘর্ষ।বিশ্বনাথে পুকুরে ডুবে প্রতিবন্ধী এক যুবতীর মৃত্যুনাসিরনগরে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা পাঠদান কার্যক্রম উদ্বোধনবিশ্বনাথে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে সবজি-ফসলের ক্ষতির আশঙ্কারুপিয়া বেগমের আকুতি ছাতকে রাব্বি হত্যা মামলা আসামীদের ফাঁসির দাবীতে সংবাদ সম্মেলনসিলেটে শিক্ষার্থীরা গণপরিবহনে চলাচলে হাফ ভাড়া দিতে পারবেনম‌হেশখালী‌তে মৃত ম‌হিষের মাংস বিক্রয়কা‌লে পিতা পুত্র আটকবিশ্বনাথে এসআই বিরুদ্ধে ঘুষ গ্রহনের অভিযোগ

অনলাইনে জাক জমকপূর্ণ ব্যবসায় সফল উদ্যোক্তা কুষ্টিয়ার কুমারখালীর আরিফিন পারভিন লিজা- হাওড় বার্তা

এনামুল হক ইমন,কুমারখালী প্রতিনিধি
  • আপডেট সোমবার, ১০ মে, ২০২১
  • ২১৯ বার পড়া হয়েছে

নারীদের প্রতিষ্ঠিত হয়ে দাঁড়ানোর খুব ভালো মাধ্যম হতে পারে এই অনলাইন ব্যবসা। সে ধারণা থেকেই বলছি কুষ্টিয়ার কুমারখালীর অনলাইন ব্যবসার সফল নারী আরিফিন পারভিন লিজার গল্প।

২০২০ সালের ২৮ আগস্ট মাসে পরিবারের সার্বিক সহযোগিতা এবং সাহসে যাত্রা শুরু করেন তরুণ উদ্যোক্তা আরিফিন পারভিন লিজা। ফেসবুকে একটি “আরিফিন’স ড্রিম” পেজ খুলে অনলাইন ব্যবসা শুরু করেন লিজা। কুমারখালী সরকারি কলেজে এইচএসসি পরীক্ষার সময় ২০০১ সালে বিয়ে হয় লিজার। কিন্তু থামেনি তার শিক্ষাজীবন। এরপর ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে অনার্স ও মাস্টার্স পাস করে ২০১৬ সালে কুমারখালী সরকারি কলেজে অনার্সে অর্থনীতির প্রভাষক হিসেবে যোগদান করেন। নিজে থেকে কিছু করবেন এই ইচ্ছায় শুরু করেন “আরিফিন’স ড্রিম”, যেখানে ভোক্তাদের রুচি ও পছন্দ অনুযায়ী পণ্য এনে থাকে। পণ্যের মধ্যে রয়েছে কুমারখালীর বিখ্যাত মিষ্টি, শাড়ি, থ্রিপিস, বেডশিট, পিলোকভার, শোপিস ইত্যাদি। দাম ও মানের কারণে তিনি সাধারণের কাছে অল্প সময়ে ভালো অবস্থান করে নিতে সক্ষম হয়েছেন।

এমন উদ্যোগ সম্পর্কে আরিফিন পারভিন লিজা বলেন, শুরুটা সহজ না হলেও পরিবার ও বন্ধুদের সহযোগিতায় আমি এগিয়ে চলতে সাহস পেয়েছি। পড়াশোনা শেষ করে চাকরি ও সংসার করার পাশাপাশি নিজে কিছু একটা করার দৃঢ় ইচ্ছা থেকেই মাথায় আসে অনলাইন ব্যবসার পরিকল্পনা। তবে এ কাজে সব সময় তার স্বামী ও বাবা অনুপ্রেরণা জুগিয়েছেন। সেইসঙ্গে শ্বশুরবাড়ির সাপোর্টের কথাও জানান তিনি।

বর্তমান ব্যবসার অবস্থা সম্পর্কে তিনি বলেন, ভালো কেনাবেচা চলছে এবং ধীরে ধীরে আরও জনপ্রিয় হয়ে উঠছে তার অনলাইন পেজ “আরিফিন’স ড্রিম”। ভবিষ্যতে একজন সফল নারী উদ্যোক্তা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত দেখতে চান তিনি। লিজা বলেন, আমার স্বপ্ন ছিল একজন উদ্যোক্তা হওয়ার। সে লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছি সঙ্গে; পরিশ্রম করে যাচ্ছি। বলতে গেলে, অনেকটাই শূন্য থেকে শুরু করেছিলাম। তাই অন্য নারীদেরও উচিত হবে শুধু শুধু ঘরে বসে না থেকে সংসারের পাশাপাশি কিছু একটা করা। স্বপ্ন, সামান্য পুঁজি আর পরিশ্রম থাকলেই অনেক দূর এগিয়ে যাওয়া সম্ভব।

পেজ খুলেছি ২০২০ সালের ২৮ আগস্ট। ৫৫ দিনে লাখপতি হয়েছি। আর ১৩ জানুয়ারি ২৪৮ দিনে । মোট বিক্রি হয়েছে ১৪,০৪০১৫টাকা। উইতে যুক্ত হই ২২ জুলাই। উইয়ের বিভিন্ন পোস্ট দেখে অনুপ্রাণিত হয়ে প্রথম পোস্ট করি ২৫ আগস্ট। এখানে অনেক সাড়া পাই। ২৪৮ দিনে আমার কাস্টমার ১০০০-এর ওপরে। আমি এখন পর্যন্ত ৬২ জেলায় কুমারখালীর বিখ্যাত মিষ্টি পৌঁছাতে পেরেছি। এবং দেশের বাইরেও আমি মিষ্টি পাঠায়

অনলাইন নারী উদ্যোক্তাদের সফলতার বিষয়ে লিজা বলেন, ‘ইচ্ছা থাকলে উপায় হয়। কেউ যদি এখানে সফল হতে চান, তবে অবশ্যই ধৈর্য আর একাগ্রতা নিয়ে লেগে থাকতে হবে। পণ্য বাছাই এবং ভোক্তাদের সেবা দেওয়ার মানকিতা থাকলে সফলতা আসবেই’।

এই সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-2281