রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৭:৪৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
নাটাই ঐক্যবদ্ধ সংগঠনের সদস্যদের বিশেষ সম্মাননা প্রদানবিশ্বনাথে নারী নির্যাতন মামলার অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের দাবিতে মানববন্ধন৯ লাখ টাকার ইয়াবাসহ, ২যুবক গ্রেফতারকুমারখালীতে উপজেলা বিএনপির ‘অবৈধ’ আহবায়ক কমিটি বাতিলের দাবিতে সংবাদ সম্মেলননাসিরনগরে বাংলাদেশ যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা শেখ ফজলুল হক মনি’র জন্মদিন পালিতখুলনা রিপোর্টার্স ক্লাবের নতুন কমিটি গঠনপঞ্চম ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে যশোর সদর ও কেশবপুরে নৌকার মাঝি হলেন যারাশান্তিগঞ্জ উপজেলার সরদপুর ব্রীজের পশ্চিম পাড় ধসে হুমকির মুখে পড়েছে স্বাভাবিক যান চলাচল।শহীদ জসিম উদ্দিন স্মৃতিসংসদ’ এর উদ্যোগে দোয়া মাহফিল ও শোকসভাকুষ্টিয়া জাতীয় মহিলা শ্রমিক লীগের বিজয় মিউজিক অন দিবসের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

শ্বশুরবাড়ির লোকজনের মারধরে প্রাণ গেল মঞ্জুর আলমের:- স্ত্রীসহ গ্রেফতার ৮ জন

হাওড় বার্তা ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট শনিবার, ২২ মে, ২০২১
  • ১৮৩ বার পড়া হয়েছে

 

সাজন বড়ুয়া সাজু
কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধি:

স্ত্রীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজনের অমানবিক নির্যাতনে প্রাণ গেল কক্সবাজার সদর উপজেলাস্থ চৌফলদন্ডী ইউনিয়নের নতুনমাহাল গ্রামের বাসিন্দা প্রবাসী মঞ্জুর আলমের (৪৫)। আজ শনিবার চট্রগ্রাম মেডিকেলের উদ্দেশ্যে নেয়ার পথে মঞ্জুর আলম মারা যায়। মারা যাওয়া মঞ্জুর আলম ঈদগাঁও থানার চৌফলদন্ডী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের নতুনমহাল গ্রামের মৃত আব্দুল গণির পুত্র।

জানা যায়,মঞ্জুর আলম(৪৫) দীর্ঘদিন প্রবাসে বসবাস করাকালীন যা আয় করতেন সব দ্বিতীয় স্ত্রী রুনা আক্তারের জন্য পাঠাতেন। দ্বিতীয় স্ত্রী রুনা আক্তারের নামে ঈদগাঁও মাইজপাড়ায় জায়গা কিনে সেখানে বহুতল ভবন ও তৈরী করেন।করোনার সময়কালীন দেশে আসলে পরিস্থিতি অস্বাভাবিক হওয়ায় মঞ্জুর আলমের আর সৌদি আরব যাওয়া সম্ভব হয়নি।

এর মধ্যে দ্বিতীয় স্ত্রী রুনা আক্তারের সাথে প্রায় সময় ঝগড়া হত নিহত মঞ্জুর আলমের সাথে।যার ফলে একে অপরের দূরত্ব বাড়তে থাকে।এক পর্যায়ে গত ২১ তারিখ শুক্রবার সকালে রুনা আক্তার ও তার বাবা নুরুল আজিম,মা মনোয়ারা বেগম, ভাই কায়েস এবং বোনসহ হত্যার উদ্দেশ্যে ঈদগাঁও মাইজপাড়ায় মঞ্জুর আলমকে নির্মমভাবে মারধর করে।পরে স্থানীয় লোকজন মঞ্জুর আলমকে ঘটনাস্থল থেকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের উদ্দেশ্যে নিয়ে আসে।
পরে আজ ২২ শে মে মঞ্জুর আলমের অবস্থা অবনতি দেখে দায়িত্বরত চিকিৎসকগণ দ্রুত চট্রগ্রাম মেডিকেলে প্রেরণ করার জন্য নির্দেশ দেন। সকালে নিহত মঞ্জুর আলমকে চট্রগ্রামের উদ্দেশ্যে নেয়া অবস্থায় মাঝপথে তিনি মারা যান।

গত ২১ তারিখ নিহত মঞ্জুর আলম কে গণপিটুনির একটা ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ভাইরাল হলে বিষয়টি কক্সবাজার জেলা পুলিশের নজরে আসে।পরে কক্সবাজার জেলা পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামানের নির্দেশে ঈদগাঁও থানার একদল পুলিশ রাতে অভিযান চালিয়ে স্ত্রী রুনা আক্তারসহ ৮জন কে গ্রেফতার করে।এই ঘটনায় স্ত্রী রুনা আক্তারসহ,তার বাবা নুরুল আজিম,মা মনোয়ারা,ভাই কায়েস এবং বোনসহ মোট ৯ জন কে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করে গ্রেফতারকৃত আসামীদের আদালতে চালান দেয়া হয়েছে।

এদিকে চৌফলদন্ডী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের ইউ.পি সদস্য মোঃ কুতুব উদ্দিন রাজু জানান, নিহত মঞ্জর আলম কে অমানবিক নির্যাতন সর্বদা ঘৃণিত একটি কর্মকান্ড এবং মঞ্জুর আলমের মৃত দেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে বলেও জানান।
এদিকে নিহত মঞ্জুর আলমের পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয় যে এই ব্যাপারে পৃথক হত্যা মামলার প্রস্তুতিও নেয়া হচ্ছে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-2281