বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০১:২৭ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দেশবাসীকে পবিত্র ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কবি মোঃ সহিদ মিয়াদেশবাসীকে পবিত্র ঈদ-উল-আযহার শুভেচ্ছা জানালেন হাওড় বার্তার নির্বাহী সম্পাদক আনিসুর রহমান পলাশসবাইকে ঈদ-উল-আযহার শুভেচ্ছা জানালেন সুনামগঞ্জের চিত্রের সম্পাদকশাল্লার বীরাঙ্গনা মুক্তিযোদ্ধা জমিলা বেগম আর নেই।কথা রাখলেন সিসিক মেয়র আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী -!!ছাত‌কে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচনে প্রধান শিক্ষ‌কের বাধা-!!যুক্তরাজ্যে ছাতক এডুকেশন ট্রাস্টের অভিষেক অনুষ্ঠিত।শিল্পকলা প্রতিযোগিতায় রবীন্দ্র সংগীতে প্রথম কাব্য চক্রবর্তী। সুনামগঞ্জের মুজিব পার্কে তরুণ-তরুণীকে মারধরের ঘটনায় ধরাছোয়ার বাইরে দুই আসামী।কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে ব্রাদার্স কমিউনিটি’র সেলাই মেশিন বিতরণ। 

সুনামগঞ্জে হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে স্যানেটারী ল্যাট্রিন স্থাপনের লক্ষ্যে নগদ অর্থ বিতরণ

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
  • সংবাদ প্রকাশ সোমবার, ২২ মে, ২০২৩
  • ৫৯ বার পড়া হয়েছে

সুনামগঞ্জ জেলায় জলবায়ু সংকটে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ জনগোষ্টির পূর্নবাসন প্রকল্পের অধীনে সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জ উপজেলার পাগলা বাজারে সিডার অর্থায়নে বেসরকারী সংস্থা উত্তরণ ও এনআরসি’র সার্বিক সহযোগিতায় হত দরিদ্রদের মাঝে স্যানেটারী ল্যাট্রিন স্থাপনের লক্ষ্যে নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়েছে। আজ সোমবার সকাল ১১টায় পাগলা বাজার এলাকায় বিতরণ করা হয়।
বিতরণ উপলক্ষ্যে আলোচনা সভায় ইউপি সদস্য রুজেল আহমদের সভাপতিত্বে ও উত্তরণের টেকনিক্যাল অফিসার রাসেল আহমদের স ালনায় বক্তব্য রাখেন এনআরসি’র ইর্মাজেন্সী রেসপন্স কো-অর্ডিনেটর গোলাম মেহেদী, উত্তরনের প্রকল্প সমন্বয়কারী রিয়াজুল ইসলাম, ফাইনান্স এন্ড এডমিন অফিসার তরিকুল ইসলাম, প্রজেক্ট ম্যানেজার আজিজ শিকদার ও ইউপি সদস্য বাছির আহমদ প্রমুখ।
এ সময় হতদরিদ্র ৩৭টি পরিবারের মাঝে স্যানেটারী ল্যাট্রিন স্থাপনের লক্ষ্যে প্রত্যেক পরিবারকে নগদ ১৪ হাজার টাকা করে বিতরণ করা হয়। উল্লেখ্য উত্তরণ ও এনআরসি শান্তিগঞ্জ ও জগন্নাথপুর উপজেলার ৪ ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অ লের হতদরিদ্রদের মাঝে গভীর নলকুপ ও স্যানেটারী সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। এছাড়াও এসব ইউনিয়নের ৪০০ জন লোকের ২০ দিনের কাজের সুযোগ করে দেয়া হয়েছে। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ ১৮ টি রাস্তা পুন:নির্মাণ করে দেয়া হয়েছে। ক্রমান্বয়ে ১৫০ জন উপকারভোগী হতদরিদ্রদের মাঝে স্যানেটারি ল্যাট্রিন নির্মানের জন্য প্রতি পরিবার প্রতি ১৪ হাজার টাকা করে প্রদান করা হবে। দুই উপজলোর ৪ ইউনিয়নে ৫০ টি গভীর নলকূপ প্রদান করা হবে। যাতে বন্যার সময় মানুষ সুপেয় পানির অভাবে না ভোগে। বন্যার হাত থেকে মানুষকে বাঁচানোর জন্য একটি আশ্রয়ন প্রকল্প নির্মাণ করা হবে।

সর্বশেষ সংবাদ পেতে চোখ রাখুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সব ধরনের সংবাদ
বাংলাদেশ চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তর থেকে নিবন্ধনকৃত পত্রিকা। © All rights reserved © 2018-2024 Haworbarta.com
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-2281