সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৯:২৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
বড় মহেশখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কমিটি অনুমোদন: সভাপতি শওকত: সাধারণ সম্পাদক ওসমান সরওয়ার নাসিরনগরে চেয়ারম্যান পদে ৬৫জন, সংরক্ষিত ১৭০ জন, সদস্য ৫০৯ জন প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিলবদরখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম ভুট্টো সিকদারকে বিদ্রোহী প্রার্থী বানিয়ে ‘মনোনয়ন বঞ্চিত করার ষড়যন্ত্রধর্মপাশায় জমি সংক্রান্ত বিরোধে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ১৫বিশ্বনাথে পলাতক আসামি সেবুল মিয়া গ্রেফতারকুষ্টিয়ায় আবারো বাড়লো চালের দামরাজাকারের মেয়ে শারমিন পেল নৌকা প্রতীকঅবশেষে সেই প্রার্থী বদল নীলফামারীতেবড়লেখায় ইনসাফ রক্তদান ও সমাজ কল্যাণ সংস্থার আয়োজনে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্প অনুষ্ঠিতছাতকে ৩৪ বোতল ভারতীয় মদসহ গ্রেফতার-০১

৮০ বছরেও বয়স্ক ভাতার কার্ড হয়নি সুরো বালার,,হাওড় বার্তা 

তপন দাস
  • আপডেট শুক্রবার, ২১ মে, ২০২১
  • ১৩৪ বার পড়া হয়েছে

নীলফামারী জেলা প্রতিনিধি

মুই এখন বুড়িমানুষ বাহে কোন কাম কাইজ করিবার পাও না।
কাহো কাজোত নেয় না করিবার পাও না বলে তাও জোর করি মানুষের বাড়িত কাজ করি খাও।

মানুষ কাজোত না নিলে না খেয়া থাকো কাহো খাবার দেয় না মোর বেটা গিলাও কোমিলাত থাকে বৌগুলোক কেও নিয়া গেইছে।

মোর বযস ৮ ০ হইচে তাও মুই কোন পাও না পরিষদ ( ইউনিয়ন পরিষদ) থাকি।

একগিলা মানুষ কয় পরিষদে নাকি শেখে বেটি হাসিনা হামার বুড়ি মানুষের জন্য নাকি কি একখান কার্ড করি দেয় তা মুই পাইম না বাহে।

কথা গুলো বলেছেন নীলফামারী জেলার জলঢাকা উপজেলার কৈমারী ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের বাড়াই পাড়া গ্রামের৷ মৃত খগেন্দ্র নাথের সহধর্মিণী শ্রী মতি সুরো বালা রায় ।

সুরো বালা রায় ১৯৪২ সালের ২৩ জুলাই জন্ম গ্রহন করেন এবং এখন তার বয়স ৮০ বছর হলেও তিনি পান না কোন সরকারী সাহায্য এবং এখন নিউজ হয়নি তার কোন বয়স্ক ভাতার কার্ড বা বিধুবা ভাতার কার্ড ।

থাকেন একটি কুড়ে ঘরে তবুও পান নি কোন সরকারী ঘর।

এবিষয়ে কৈমারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলার চেষ্টা করা হলে তিনি এবিষয়ে কোন মন্তব্য করতে রাজি হয়নি এবং ৭ নং ওয়ার্ডের মেম্বার ( নাম বলতে রাজি হয়নি) এর সাথে কথা হলে তিনি বলেন আমি খবর টি আপনার মাধ্যমে শুনলাম আর এর আগে এবিষয়ে কোন ব্যক্তি আমাকে অবহিত করেনি এবং আমি আগে এবিষয়ে জানতে পারলে অবশ্যই ওনাকে একটি বয়স্ক ভাতার কার্ড করে দিতাম।

এবিষয়ে জলঢাকা উপজেলার ইউএনও কর্মকর্তা মাহবুব হাসানের সাথে কথা হলে তিনি বলেন আমি আগে জানতাম আমার উপজেলায় ৮০ বছরের একটি বিধুবা নারী আছে যিনি এখনো কোন সরকারী সহায়তা বিধুবা ভাতা বা বয়স্ক ভাতার কার্ড পায়নি তবে আমি এখন বিষয়টি দেখবো।

এদিকে জলঢাকা উপজেলার সমাজসেবা এর সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করা হলে তার ফোন ব্যস্ত পাওয়া যায় ।

এই সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-2281