সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১০:২০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
বড় মহেশখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কমিটি অনুমোদন: সভাপতি শওকত: সাধারণ সম্পাদক ওসমান সরওয়ার নাসিরনগরে চেয়ারম্যান পদে ৬৫জন, সংরক্ষিত ১৭০ জন, সদস্য ৫০৯ জন প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিলবদরখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম ভুট্টো সিকদারকে বিদ্রোহী প্রার্থী বানিয়ে ‘মনোনয়ন বঞ্চিত করার ষড়যন্ত্রধর্মপাশায় জমি সংক্রান্ত বিরোধে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ১৫বিশ্বনাথে পলাতক আসামি সেবুল মিয়া গ্রেফতারকুষ্টিয়ায় আবারো বাড়লো চালের দামরাজাকারের মেয়ে শারমিন পেল নৌকা প্রতীকঅবশেষে সেই প্রার্থী বদল নীলফামারীতেবড়লেখায় ইনসাফ রক্তদান ও সমাজ কল্যাণ সংস্থার আয়োজনে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্প অনুষ্ঠিতছাতকে ৩৪ বোতল ভারতীয় মদসহ গ্রেফতার-০১

কুষ্টিয়ায় জিগজ্যাগ ইটভাটা মালিক সমিতির মতবিনিময় ও আলোচনা সভায় মান্নান খান

হাওড় বার্তা ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট বুধবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২১
  • ২৫ বার পড়া হয়েছে

কুষ্টিয়া জেলার জিগজ্যাগ ইটভাটা মালিক সমিতির নতুন কমিটির মতবিনিময় ও আলোচনা সভা কুষ্টিয়া শহরের চিলিচ পার্কে ১২ তারিখ মঙ্গলবার সকাল ১১ টার সময় অনুষ্ঠিত হয় । উক্ত আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন জিগজ্যাগ ভাটা মালিক সমিতির সভাপতি হাজী মো: নুরুজ্জামান হাবলু মোল্লা, সম্পাদক সাধারণ সম্পাদক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুমারখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও কুমারখালী উপজেলার চেয়ারম্যান মান্নান খান ও সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম লিটু। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জিগজ্যাগ ভাটা মালিকের সকল নেতৃবৃন্দ।

জিগজ্যাগ ভাটা মালিক সমিতির সভাপতি নুরুজ্জামান হাবলু মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক মান্নান খান ও জাহিদুল ইসলাম লিটু তাদের বক্তব্যে সকলের উদ্দেশ্যে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অমান্য করে কোন ভাটা মালিক জীববৈচিত্র্য বিনষ্ট করে কয়লা ব্যবহারের পরিবর্তে কোন ভাটাতেই কাঠ খড়ি ব্যবহার করা যাবে না। তারা এটাও বলেন, ২০১৩ সালে ড্রাম চিমনি বিলুপ্তি ঘোষণা করেন তবুও কুষ্টিয়া জেলাতে এখনো প্রচুর ড্রাম চিমনি বসিয়ে কাঠ দিয়ে ইট পুড়িয়ে যাচ্ছেন কিছু অসাধু প্রশাসনের নির্দেশে। কুষ্টিয়াতে প্রায় ২০০ টির মত ইটভাটা রয়েছে তার মধ্যে ৫০টি রয়েছে জিগজ্যাগ ভাটা। ১২০ ফিট ফিক্সড চিমনি ইটভাটাতেও কয়লা ব্যবহার না করে খড়ি ব্যবহার করে চলেছেন। যার ফলে আমরা মোটা মালিকগণ ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি।

নেতৃবৃন্দরা এটাও বলেন বন উজাড় করে এখন আর ঐসকল অসাধু ইটভাটা মালিকদের ভাটা চালাতে দিব না, প্রয়োজনে আমরা উপর মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করব, প্রয়োজন হলে মানববন্ধন করব তবুও পরিবেশের ভারসাম্য বিনষ্ট করতে দিব না। অবশেষে উক্ত আলোচনা সভায় সকলের সর্ব সম্মতিক্রমে নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহ থেকে ইটভাটার কার্যক্রম শুরু করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

এই সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-2281